রেলের ২৯টি নিয়মের মধ্যে ২৩টিই বদল। দেখুন নতুন নিয়ম

দেশ

নজর বাংলা ডিজিটাল ডেস্ক: যাত্রীরা তাদের চলাফেরায় যাতে করে স্বাচ্ছন্দ্য পান সে জন্য আলাদা আইন রয়েছে ভারতীয় রেলে। কিন্তু, অনেকক্ষেত্রেই তার সদ্ব্যবহার হচ্ছে না। আর সেজন্যই ভারতীয় রেল আইন বদলাতে চলেছে।

এ প্রসঙ্গে, আরপিএফের এক কমান্ড্যান্ট জানিয়েছেন, “যাত্রীরা যাতে চলাফেরায় স্বাচ্ছন্দ্য পান সে জন্য আইন রয়েছে রেলে। কিন্তু তার সদ্ব্যবহার হচ্ছে না। আইনকে ব্যবসায় পরিণত করেছে এক শ্রেণির আরপিএফ পােস্ট কর্তারা। রেল আইনের ২৯টির মধ্যে মাত্র ছ’টি ধারা বাদে সব কটি জামিন যােগ্য। অপরাধীদের সংশােধন করতে জরিমানা নিয়ে ছেড়ে দেওয়ার আইন রয়েছে। অথচ এক শ্রেণির পােস্ট কর্তৃপক্ষ মহুরীর মাধ্যমে মােটা টাকা বেআইনি আদায় করে যাচ্ছে। বহু অভিযােগ সত্বেও সমস্যার সমাধান না মেলায় এবার সরাসরি আইন বদলে ফেলার চিন্তা করা হয়েছে। খুব শীঘ্রই তা কার্যকরী হবে।”

ভারতীয় রেলে, মোট ২৯টি আইনের মধ্যে ২৩টি আইন বদলে ফেলা হবে। যে যে আইন বা নিয়ম গুলো বদলে যাচ্ছে তা হল-

১) চেন টেনে গাড়ি দাঁড় করানাে ভারতীয় রেলের ১৪১ ধারায় জামিন অযােগ্য অপরাধ। এটাকে বদলে ফেলার চিন্তা করা হয়েছে। কারন, যাত্রার সময়ে অনেকে বিপদে পড়ে ট্রেনের চেন টানতে বাধ্য হন। তাই ১০০ টাকা স্পট ফাইন নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হবে দোষীদের।

২) ভিক্ষা করা ১৪৪(২), ধূমপান ১৬৭ ধারায় অপরাধ। এক্ষেত্রে ১০০ টাকার স্পট ফাইনে এদের ছেড়ে দেওয়া হবে।

৩) অশান্তি করা, ভুল করে মহিলা কামরায় উঠে পড়ার মতাে ঘটনাকে শাস্তিযােগ্য অপরাধের তালিকা থেকে বাদ দেওয়ার প্রস্তাব এনেছে রেলমন্ত্রক।

৪) ছ’টি ধারা জামিন অযােগ্য যার মধ্যে ১৪১ চেন পুলিং সংশোধন করার পরিকল্পনা রয়েছে। বাকি পাঁচটি হল, ১৪৩ টিকিটের দালালি, ১৫৪ যাত্রী সুরক্ষায় বাঁধা, ১৬০ লেবেল ক্রসিং ভাঙা বা জোর করে খােলা, ১৬৪ জ্বলানশীল পদার্থ ট্রেনে আনা ও ট্রেন অবধের মতাে অপরাধ ১৭৪ ধারা মতে জামিন অযােগ্য। যাত্রী থেকে নিরপরাধ মানুষের হয়রানি ও বেআইনি ভাবে অর্থ হাতানাের পদ্ধতি রুখতে এই আইনি বদল আনতে চলেছে ভারতীয় রেল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *